ঢাকা, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪
Sharenews24

ইভিএম প্রকল্প: ভেস্তে যাওয়ার পথে প্রায় ৪ হাজার কোটি টাকা

২০২৪ জুন ২১ ১৬:১৭:০৭
ইভিএম প্রকল্প: ভেস্তে যাওয়ার পথে প্রায় ৪ হাজার কোটি টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক : মাত্র ৯ দিন মেয়াদ আছে চলমান ইভিএম প্রকল্পের। একয়দিনে প্রকল্পের মেয়াদ না বাড়লে ভেস্তে যাবে প্রায় ৪ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প।

এরমধ্যে প্রায় আড়াই হাজার কোটি টাকার ইভিএম অচল হয়ে পড়েছে। প্রকল্পের মেয়াদ আরও এক বছর বাড়ানোর প্রস্তাব পাস না হলে সচল ইভিএমও নষ্ট হয়ে যেতে পারে।

২০১৮ সালে সংসদ নির্বাচনের আগে দেড় লাখ ইভিএম কেনেন কে এম নূরুল হুদার কমিশন। সে সময় এই প্রকল্পে ব্যয় হয় ৩ হাজার ৮৪০ কোটি টাকা।

১০ বছর মেয়াদি ইভিএমগুলো অব্যবস্থাপনা আর অযত্নে দুই-তিন বছর পরই অকেজো হতে শুরু করে। দেড় লাখ ইভিএমের মধ্যে ১ লাখ ১০ হাজার ইভিএম নষ্ট হয়ে আছে। যা টাকার অঙ্কে প্রায় আড়াই হাজার কোটি টাকা।

দূরদর্শিতার অভাবে শেষ সময়ে এসে ইভিএম প্রকল্পের মেয়াদ বাড়াতে তোড়জোড় শুরু করে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। বরাদ্দ না বাড়িয়ে ইভিএম প্রকল্পের মেয়াদ এক বছর বাড়ানোর প্রস্তাব সরকারকে দিয়েছে ইসি। বাজেট ঘোষণার আগেই ইভিএম প্রকল্পের মেয়াদ বাড়ানোর প্রস্তাব না দেওয়ায় অনিশ্চয়তা সৃষ্টি হয়েছে।

কমিশনের অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথ বলেন, ‘অকেজো ইভিএম নষ্ট করা হবে। বিশেষ বিবেচনায় প্রকল্প বাড়াতে সরকারকে অনুরোধ করা হয়েছে।’

তিনি বলেন, ইভিএমের শেষ রক্ষা হবে কি না, তা নির্ভর করছে সরকারের সিদ্ধান্তের ওপর। প্রকল্পের মেয়াদ না বাড়লে জায়গার অভাবে ভালো ইভিএমও নষ্ট হওয়ার শঙ্কা থেকে যাবে। প্রকল্প বাড়লে আরও ৩০ হাজার ইভিএম ভালো করা যাবে।

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ১৫০ আসনে ইভিএম ব্যবহার করতে চেয়েও পারেনি কাজী হাবিবুল আউয়াল কমিশন। কিন্তু উপনির্বাচন ও স্থানীয় নির্বাচন মিলে প্রায় দেড় হাজার ভোট হয়েছে ইভিএমে।

তারিক/

পাঠকের মতামত:

জাতীয় এর সর্বশেষ খবর

জাতীয় - এর সব খবর



রে