ঢাকা, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪
Sharenews24

রাইট ইস্যুর বছরেই আমরা নেটওয়ার্কসের মুনাফায় বড় চমক!

২০২৩ আগস্ট ২২ ১৮:০৮:০১
রাইট ইস্যুর বছরেই আমরা নেটওয়ার্কসের মুনাফায় বড় চমক!

নিজস্ব প্রতিবেদক : ২০১৭ সালে তথ্যপ্রযুক্তি খাতের কোম্পানি আমরা নেটওয়ার্কস লিমিটেড শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত হয়। পরের বছর ২০১৮ সালে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি মুনাফা (ইপিএস) দেখানো হয় ৪ টাকা ০১ পয়সা। তার পরের বছর ২০১৯ সালে ইপিএস হয় ৪ টাকা । তারপর থেকে থেকেই ইপিএসে ধারাবাহিকা পতন। ২০২১ সালে ইপিএস কমে দাঁড়ায় ২ টাকা ১৪ পয়সায়। পরের বছর ২০২২ সালে আরও কমে হয় ১ টাকা ৮৫ পয়সায়।

তবে এ বছর ২০২৩ সালে অর্থাৎ ৩০ জুন, ২০২৩ অর্থবছরে রাইট শেয়ার ইস্যুর ছোঁয়ায় কোম্পানিটির মুনাফায় ঝলক দেখা যায়। এ বছর কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৩ টাকা ৬৪ পয়সা। যা আগের বছর ডাইলুটেড ছিল ১ টাকা ৭৬ পয়সা।

রাইট শেয়ার স্যুর সুবাদে কোম্পানিটি এ বছর নির্ধারিত সময়ের অনেক আগেই বিনিয়োগকারীদের ডিভিডেন্ডের খবর দিয়েছে। আগের বছর ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছিল ২৫ অক্টোবর। তার আগের বছরগুলোতেও অক্টোবর মাসের আগে ডিভিডেন্ড ঘোষণা করতে দেখা যায়নি কোম্পানিটিকে। তবে এবার দুই মাস আগে বিনিয়োগকারীদের ডিভিডেন্ডের খবর দিয়েছে।

এ বছর কোম্পানিটি শেয়ারবাজারে নতুন দৃষ্টান্তও স্থাপন করেছে। এ বছর এটিই জুন ক্লোজিংয়ের প্রথম কোম্পানি, যেটি বিনিয়োগকারীদের প্রথম ডিভিডেন্ড ঘোষণার স্বাদ দিল।

তবে কোম্পানিটি এ বছর মুনাফায় ঝলক দেখালেওডিভিডেন্ড ঘোষণায় মোটেও উদার হয়নি। কারণ আগের বছর ১ টাকা ৭৬ পয়সা ইপিএসের বিপরীতে ৫ শতাংশ ক্যাশ ও ৫ শতাংশ বোনাস মিলে ১০ শতাংশ ডিভিডেন্ড দিয়েছিল। আর এ বছর ৩ টাকা ৬৪ পয়সা ইপিএসের বিপরীতে ১১ শতাংশ ক্যাংশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। যে কারণে বিনিয়োগকারীরা কোম্পানিটির মুনাফাকে সন্দেহের চোখে দেখছেন। বিনিয়োগকারীরা বলছেন, রাইট শেয়ার জাস্টিপাই করার জন্যই কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ কী অতিরঞ্জিত মুনাফা দেখানোর আশ্রয় নিয়েছে!

আমরা নেটওয়ার্কস ২০১৭ সালে ৩৫ টাকায় ইস্যু মূল্যে শেয়ারবাজার থেকে ৫৬ কোটি টাকার বেশি সংগ্রহ করেছিল। ওই টাকা থেকে ১৮ কোটি ৫৯ লাখ টাকার ঋণ পরিশোধ ও বাকি টাকা দিয়ে আইটি খাতের বিভিন্ন উন্নয়নে ব্যবহার করার কথা ছিল।

এমন উচ্চ প্রিমিয়ামে টাকা উত্তোলন করা কোম্পানিটির ডিভিডেন্ড বরাবরই ১০ শতাংশে আটকে থাকে। গত ৭ বছরের মধ্যে ৫ বছরই কোম্পানিটি ১০ শতাংশ করে ডিভিডেন্ড দিয়েছে। যা কাট-অফ প্রাইসের তুলনায় ২.৫৬ শতাংশ। ব্যাংকের এফডিআর করলে এর চেয়ে অনেক বেশি পাওয়া যায়- এমন অভিমত বিনিয়োগকারীদের।

প্রসঙ্গত, কোম্পানিটি ২টি সাধারণ শেয়ারের বিপরীতে ১টি রাইট শেয়ার ইস্যুর ঘোষণা দিয়েছে। প্রতিটি রাইট শেয়ারে ২০ টাকা প্রিমিয়ামসহ ৩০ টাকা ইস্যু মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে।

কোম্পানিটির বর্তমানে মোট শেয়ার রয়েছে ৬ কোটি ১৯ লাখ ৮৬ হাজার ৬০৮টি। বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন রয়েছে ৬১ কোটি ৯৮ লাখ ৬৬ হাজার ৮০ টাকা।

শেয়ারনিউজ, ২২ আগস্ট ২০২৩

পাঠকের মতামত:

শেয়ারবাজার এর সর্বশেষ খবর

শেয়ারবাজার - এর সব খবর



রে