ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪
Sharenews24

তিন মাসে শেয়ারবাজারে এসেছে ১৯ হাজারের বেশি নতুন বিনিয়োগকারী

২০২৩ নভেম্বর ১২ ০৭:১৪:০৭
তিন মাসে শেয়ারবাজারে এসেছে ১৯ হাজারের বেশি নতুন বিনিয়োগকারী

নিজস্ব প্রতিবেদক : গত তিন মাসে শেয়ারবাজারে নতুন বিনিয়োগকারী এসেছে ১৯ হাজারের বেশি। সেন্ট্রাল ডিপোজিটরি প্রতিষ্ঠান সিডিবিএলের হালনাগাদ তথ্যে শেয়ারবাজারে বিনিয়োগের জন্য অ্যাকাউন্ট খোলার এমন চিত্র মিলেছে।

সিডিবিএল সূত্রে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, গত ১ আগস্ট থেকে গড়ে প্রতিদিন বিও অ্যাকাউন্ট বেড়েছে ২৮৫টি। শুধু গত ২২ আগস্ট এক দিনে ৩৯২টি বিও অ্যাকাউন্ট কমে। ওই কমা বিবেচনায় নিয়েও গত বৃহস্পতিবার পর্যন্ত ৬৮ কার্যদিবসে মোট ১৯ হাজার ৩৬৯টি বিও অ্যাকাউন্ট বেড়েছে। গত ২৮ অক্টোবরের পর ১০ কার্যদিবসে দুই হাজার অ্যাকাউন্ট বেড়েছে।

এর আগে নতুন করে নবায়ন না করায় গত জুন ও জুলাই মাস মিলে ১ লাখ ২৯ হাজার ৬৬২টি বিও অ্যাকাউন্ট কমে। এতে গত ৩১ জুলাই শেষে বিও অ্যাকাউন্ট সংখ্যা ১৭ লাখ ৪৩ হাজার ২৫টিতে নামে। গত বৃহস্পতিবার শেষে এ সংখ্যা ফের বেড়ে ১৭ লাখ ৬২ হাজার ৩৯৪-এ উন্নীত হয়েছে।

সিডিবিএল সূত্রে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, গত বৃহস্পতিবার (০৯ নভেম্বর) শেষে সক্রিয় ১৭ লাখ ৬২ হাজার ৩৯৪ বিও অ্যাকাউন্টের মধ্যে ১৩ লাখ ৯৫ হাজার ৩৪৪টিতে শেয়ার ছিল। ২ লাখ ৯৯ হাজার ৭৩১টিতে কোনো শেয়ার ছিল না। ৬৭ হাজার ৩১৯টি অ্যাকাউন্টে কোনো শেয়ার কেনাবেচা হয়নি।

বিভিন্ন ব্রোকারেজ হাউসের কর্মকর্তারা জানান, তালিকাভুক্ত অধিকাংশ কোম্পানির শেয়ার এক বছরের বেশি সময় ধরে ফ্লোর প্রাইসে পড়ে থাকায় সব বিনিয়োগকারীর মধ্যে অস্বস্তি আছে। গড়ে প্রত্যেকের ৭০ শতাংশ বিনিয়োগ আটকে গেছে। এর পরিমাণ লাখ কোটি টাকার কম নয়। এর মধ্যেও বিও অ্যাকাউন্ট বাড়ছে।

ব্রোকারেজ হাউজের কর্মকর্তারা জানান, এখন প্রতিদিন তাদের হাউসে ১৫ থেকে ২০টি নতুন বিও অ্যাকাউন্ট খুলছেন বিনিয়োগকারীরা। এর মধ্যে জুন-জুলাই মাসে অ্যাকাউন্ট বন্ধ করেছিলেন এমন পুরোনো বিনিয়োগকারী যেমন আছেন, তেমনি নতুন বিনিয়োগকারীও আসছেন। নতুন বিনিয়োগকারীরা ৫০ হাজার টাকা থেকে ২ থেকে ৩ লাখ টাকা পর্যন্ত বিনিয়োগ নিয়ে আসছেন।

সার্বিক পরিস্থিতি যখন নেতিবাচক তখন নতুন বিও অ্যাকাউন্ট খোলার কারণ কী হতে পারে– এমন প্রশ্নে তারা বলেন, প্রথমত যখন কোনো আইপিও আসে তখন কিছু না কিছু নতুন বিও অ্যাকাউন্ট খোলা হয়। এছাড়া এখন অনেক ব্রোকারেজ হাউসে অনলাইনে বিও অ্যাকাউন্ট খোলা যায়। এ কারণেও বিও অ্যাকাউন্ট খোলা বাড়তে পারে।

ব্রোকারেজ হাউসের কর্মকর্তারা মনে করছেন, রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে সংকট থাকলেও সব শেয়ারের দরে ফ্লোর প্রাইস থাকার কারণে অনেকেই মনে করতে পারেন, শেয়ারবাজার পরিস্থিতি বর্তমানের তুলনায় খারাপ হওয়ার শঙ্কা নেই। এমন ভাবনা নতুন বিনিয়োগকারীদের বিনিয়োগে আকৃষ্ট করে থাকতে পারে।

শেয়ারনিউজ, ১২ নভেম্বর ২০২৩

পাঠকের মতামত:

শেয়ারবাজার এর সর্বশেষ খবর

শেয়ারবাজার - এর সব খবর



রে