ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪
Sharenews24

প্রকৌশল খাতে আয় বেড়েছে ১২ কোম্পানির

২০২৩ নভেম্বর ২১ ১৭:০৩:২৪
প্রকৌশল খাতে আয় বেড়েছে ১২ কোম্পানির

নিজস্ব প্রতিবেদক : শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত প্রকৌশল খাতের ৪২টি কোম্পানির মধ্যে (জুলাই-সেপ্টেম্বর’২৩) প্রান্তিকে আয় বেড়েছে ১২টির। ডিএসইর ওয়েবসাইটে প্রকাশিত কোম্পানিগুলোর অনিরিক্ষীত আর্থিক প্রতিবেদন থেকে এই তথ্য জানা গেছে।

আয় বাড়ার কোম্পানিগুলো হলো- ন্যাশনাল পলিমার, সিঙ্গার বাংলাদেশ, ওয়ালটন হাই-টেক, আনোয়ার গ্যালভানাইজিং, নাহী অ্যালুমিনিয়াম, বিএসআরএম স্টিলস লিমিটেড, ডমিনেজ স্টিল, মুন্নু এগ্রো, রংপুর ফাউন্ড্রি, দেশবন্ধু পলিমার,বিএসআরএম স্টিল রি-রোলিং লিমিটেড এবং ইফাদ অটোস লিমিটেড।

ন্যাশনাল পলিমার

প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর’২৩) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৬০ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছিল ৩ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় আয় বেড়েছে ৫৭ পয়সা।

সিঙ্গার বাংলাদেশ

তৃতীয় প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর’২৩) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৮৮ পয়সা। গত বছর একই সময়ে লোকসান ছিল ৮৫ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় আয় বেড়েছে এক টাকা ৭৩ পয়সা।

ওয়ালটন হাই-টেক

প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৬ টাকা ৬৭ পয়সা। আগের অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছিল ১ টাকা ৫২ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় আয় বেড়েছে ৮ টাকা ১৫ পয়সা।

আনোয়ার গ্যালভানাইজিং

প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ১০ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৫৬ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় আয় বেড়েছে ৫৪ পয়সা।

নাহী অ্যালুমিনিয়াম

প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই’২৩-সেপ্টেম্বর’২৩) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪৯ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে কোম্পানিটি শেয়ার প্রতি ইপিএস হয়েছিল ১৮ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় আয় বেড়েছে ২৮ পয়সা।

বিএসআরএম লিমিটেড

চলতি অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিকে এ কোম্পানির সমন্বিতভাবে শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২ টাকা ২০ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছিল ৫ টাকা ৫১ পয়সা। অর্থা’ৎ আগের বছরের তুলনায় আয় বেড়েছে ৭ টাকা ৭১ পয়সা।

বিএসআরএম স্টিলস

অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর’২৩) এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১টাকা ২১ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছিল ৯৩ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় আয় বেড়েছে১ টাকা ১৪ পয়সা।

ডমিনেজ স্টিল

অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০৪ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ০৩ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় আয় বেড়েছে ১ পয়সা।

মুন্নু এগ্রো মেশিনারিজ

অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৯৫ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে কোম্পানিটি শেয়ার প্রতি ইপিএস হয়েছিল ৬৭ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় আয় বেড়েছে ২৮ পয়সা।

রংপুর ফাউন্ড্রি

প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর’২৩) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে এক টাকা ১৬ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছিল এক টাকা ১৫ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় আয় বেড়েছে ১ পয়সা।

দেশবন্ধু পলিমার

অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৯ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে কোম্পানিটি শেয়ার প্রতি ইপিএস হয়েছিল ৮ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় আয় বেড়েছে ১ পয়সা।

ইফাদ অটোস

অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে কোম্পানিটি শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছিল ৭৮ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় আয় বেড়েছে ৭৯ পয়সা।

শেয়ারনিউজ, ২১ নভেম্বর ২০২৩

পাঠকের মতামত:

শেয়ারবাজার এর সর্বশেষ খবর

শেয়ারবাজার - এর সব খবর



রে