ঢাকা, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪
Sharenews24

ঈদেও মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশিরা ভালো নেই

২০২৪ জুন ১৭ ১৯:৪৮:০৩
ঈদেও মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশিরা ভালো নেই

প্রবাস ডেস্ক : এশিয়ার সবচেয়ে সমৃদ্ধশালী দেশে মালয়েশিয়ায় গত দেড় বছরে প্রায় সাড়ে পাঁচ লাখ কর্মী গেছেন। গড়ে তাদের খরচ হয়েছে পাঁচ লাখ টাকার বেশি।

আর্থিক স্বচ্ছলতার আশার শিল্পোন্নত দেশটিতে গিয়েও স্বস্তিতে নেই বাংলাদেশিরা। তাদের অনেকেই এখনো চাকরি পাননি। আরবার যারা চাকুরী পেয়েছেন, তারা যেভাবে আশা করেছিলেন, সে রকম চাকুরি পাননি।

এমনি অবস্থায় মালয়েশিয়াতেও আজ পবিত্র ঈদুল আজহা উদযাপিত করলো প্রবাসী বাংলাদেশিরা। পরিবার থেকে দূরে একান্তে ঈদ কাটাচ্ছেন প্রবাসীরা। যদিও তাদের মনে শান্তি নেই।

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের হাবিবুর রহমান গত সোয়া চার আগে মালয়েশিয়া গেছেন। সাড়ে ৪ লাখ টাকার বেশি খরচ করে সেই দেশে গেছেন। কিন্তু এখন পর্যন্ত চাকরি পাননি আত্মীয়-স্বজনদের ওপর নির্ভর করে দিনাতিপাত করছেন।

একই রকম মাদারীপুরের শিবচরের মো. রাজীবের অবস্থা। তিন মাস আগে রাজিব মালয়েশিয়ায় গেছেন। ৪ লাখ ৯০ হাজার টাকা খরচ করে দেশটিতে গেলেও এখন পর্যন্ত চাকরি পাননি। তাঁর এক খালু আছেন কুয়ালালামপুরে, সেখানেই আপাতত থাকা-খাওয়ার সুবিধা পাচ্ছেন।

রাজিব বলেন, ‘মালয়েশিয়ায় এসে তিন মাসে কাজ পাইনি, ঈদ চলে এসেছে। পরিবারে কোনো টাকা পাঠাতে পারিনি। নিজের জন্যও কিছু কিনতে পারিনি।’

'মালয়েশিয়া চাকরির খবর' নামে প্রবাসীদের জন্য একটি ফেসবুক গ্রুপ রয়েছে। সেখানে ইফতেখার আহমেদ নামে এক প্রবাসী লিখেছেন, ঈদের দিনেও তিনি ডিউটিতে যাচ্ছেন। সকাল ১০টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত কাজ। একদিনও ছুটি চাইতে পারিনি।

ইফতেখার আহমেদের পোস্টে মন্তব্য করে আরেক প্রবাসী মো. আশরাফুল আহমেদ লিখেছেন, আরে আমি সকাল ৬টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত।

তবে কেউ কেউ পরিবার থেকে দূরে থাকলেও প্রবাসী জীবনে ঈদের আনন্দ উপভোগ করার চেষ্টা করেন। তিনি মালয়েশিয়ার পেনাং প্রদেশের জর্জ টাউনে কাজ করতেন। eat calm তিনি বলেন, ঈদের দিন পরিবার থেকে দূরে থাকতে খারাপ লাগে। তবে চেষ্টা করি ঈদের দিনটা কোনো না কোনোভাবে উপভোগ করার।

গোলাম রাব্বানী বলেন, প্রবাসীদের ঈদ বলে কিছু নেই। পরিবার ছাড়া ঈদ কঠিন। তবে এখানে বন্ধুদের সঙ্গে ঈদ উদযাপন করি।

আনন্দ ভাগাভাগি করেন প্রবাসীরাও। যারা ছুটি পেয়েছেন তাদের অনেকেই প্রবাসী বন্ধুদের সঙ্গে বাইরে গেছেন। তবুও শূন্যতা কাজ করে পরিবারের জন্য, শিশুদের জন্য, পিতামাতার জন্য।

মালয়েশিয়ান প্রবাসী আরিফ হোসেন বলেন, ঈদের নামাজ পড়েছি। আমি মিষ্টি খেয়েছি। আমি এখন বেড়াতে যাবো। দেশ থেকে বারবার ফোন আসছে একমাত্র মেয়ের। পরিবারকে, সন্তানকে মিস করছি।

'মালয়েশিয়াপ্রবাসী বাংলাদেশি' নামে প্রবাসীদের একটি ফেসবুক পেজ রয়েছে। এই পেজের অ্যাডমিন রাকিব রানা বলেন, প্রবাসীরা পরিবারের সুখের জন্য, পরিবারের পশু কোরবানির জন্য তাদের জীবন উৎসর্গ করেন। তাদের আসলে ঈদ বলতে আলাদা কিছু নেই।

মামুন/

পাঠকের মতামত:

প্রবাস এর সর্বশেষ খবর

প্রবাস - এর সব খবর



রে