ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪
Sharenews24

দুবাইতে বাংলাদেশের কারা সম্পদের পাহাড় গড়েছেন?

২০২৪ জুন ১৮ ০৭:১৫:৩৯
দুবাইতে বাংলাদেশের কারা সম্পদের পাহাড় গড়েছেন?

প্রবাস ডেস্ক : ‘দুবাই আনলকড’ শীর্ষক অনুসন্ধানী প্রতিবেদনে দুবাইয়ে সারা বিশ্ব থেকে অর্থপাচারকারীদের অর্থের একটি ফিরিস্তি দেওয়া হয়েছে। সম্প্রতি প্রকাশিত সেই তালিকায় বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ব্যক্তিদের নাম যেমন আছে তেমনি আছে বাংলাদেশিদের নামও।

অনুসন্ধানী এই প্রতিবেদনে ৩৯৪ জন বাংলাদেশির ২ হাজার ছয়শ ৩৬ কোটি টাকা মূল্যের ৬৪১টি সম্পত্তি রয়েছে বলে তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে।

তবে এই প্রতিবেদনে বাংলাদেশের যারা দুবাইয়ে সম্পদ গড়ে তুলেছেন তাদের নাম প্রকাশ করা হয়নি।

প্রতিবেদনের সূত্র ধরে বিভিন্ন পর্যায়ে অনুসন্ধান করে দুবাইয়ে যে সমস্ত বাংলাদেশিরা অবৈধভাবে সম্পদ করেছেন, তাদের কিছু তথ্য পাওয়া গেছে। যাদের মধ্যে রয়েছেন রাজনীতিবিদ, বিরোধী দলের নেতা, সাবেক সেনা কর্মকর্তা, ঋণখেলাপী ব্যবসায়ী এবং আমলা।

প্রাপ্ত তথ্যমতে, ৩৯৪ জনের মধ্যে ব্যবসায়ীদের সংখ্যা ২৫ থেকে ৩০ জন। এই সমস্ত ব্যবসায়ীদের মধ্যে রয়েছেন ঋণখেলাপি এবং পলাতক। ঋণ খেলাপের অভিযোগে তাদের বিরুদ্ধে মামলা রয়েছে এবং এই সমস্ত মামলা মোকাবেলা না করে তারা বিদেশে পালিয়ে গেছেন। ঋণ খেলাপিদের মধ্যে একজন ব্যাংকের মালিকও রয়েছেন বলে প্রাপ্ত তথ্যে দেখা গেছে।

তালিকার মধ্যে রাজনীতিবিদের মধ্যে আওয়ামী লীগ, বিএনপিসহ প্রধান প্রধান রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ দুবাইতে সম্পদের পাহাড় গড়েছেন বলে তথ্য পাওয়া গেছে।

আওয়ামী লীগের কয়েক নেতার দুবাইয়ে সম্পদ রয়েছে বলে প্রাথমিক তথ্যে জানা গেছে। এছাড়াও আওয়ামী সমর্থক ব্যবসায়ী হিসেবে পরিচিত এই রকম আরও অনেকের দুবাইয়ে বিভিন্ন ধরণের সম্পদের তথ্য পাওয়া গেছে।

বিএনপির একাধিক নেতার দুবাইতে সম্পত্তি রয়েছে এবং এই সম্পদের পরিমাণ আওয়ামী লীগের নেতাদের চেয়ে কম নয় বলেই প্রাপ্ত তথ্যে দেখা যাচ্ছে।

তালিকায় সাবেক সেনা কর্মকর্তাদেরও তথ্য পাওয়া গেছে। এগারোর সময় সক্রিয় একজন সামরিক গোয়েন্দা সংস্থার ব্যক্তি এখন দুবাইয়ে অবস্থান করছেন। তিনি বিপুল সম্পদের মালিক বলে তথ্য পাওয়া গেছে।

এছাড়া তালিকায় সাবেক আমলাদের প্রাধান্যও কম নয়। এদের মধ্যে অনেক অবসরের পর দুবাইয়ে বিপুল পরিমাণ বিনিয়োগ করেছেন এবং স্থায়ীভাবে সেখানে বসবাস করছেন। এদের মধ্যে পুলিশ কর্মকতারা অনেক এগিয়ে রয়েছেন।

তবে যেহেতু ‘দুবাই আনলকড’ অনুসন্ধানী প্রতিবেদনে এই সমস্ত ব্যক্তিদের সম্পর্কে নিশ্চিত তথ্য পাওয়া যায়নি, সেজন্য বাংলাদেশ থেকে যারা অর্থ দুবাইয়ে পাচার করেছেন তাদের সম্পর্কে বিস্তারিত কোন পরিচয় বা বিবরণ প্রকাশ করেনি।

এএসএম/

পাঠকের মতামত:

প্রবাস এর সর্বশেষ খবর

প্রবাস - এর সব খবর



রে