ঢাকা, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪
Sharenews24

মালয়েশিয়ায় ‘গিফট ফেয়ারে’ সাড়া জাগিয়েছে বাংলাদেশি পণ্য

২০২৪ জুন ১৮ ২২:০২:৪৫
মালয়েশিয়ায় ‘গিফট ফেয়ারে’ সাড়া জাগিয়েছে বাংলাদেশি পণ্য

প্রবাস ডেস্ক : মালয়েশিয়ায় শুরু হয়েছে তিন দিনব্যাপী ১৪তম ‘গিফটস ফেয়ার’। এতে বাংলাদেশ বিভিন্ন পণ্যের সমাহার নিয়ে অংশগ্রহণ করেছে।

প্রথম দিনেই বাংলাদেশি পণ্য বেশ সাড়া ফেলেছে। বাংলাদেশের পাট ও চামড়াজাত পণ্যের প্রতি আগ্রহ দেখিয়েছেন বিভিন্ন দেশের আমদানিকারক ও ব্যবসায়ীরা।

এছাড়াও ব্যবসায়ীরা কিয়ামের গৃহস্থালি ও রান্নাঘরের জিনিসপত্র, নন ওভেন ব্যাগের প্রতিও আগ্রহ দেখিয়েছেন।

আজ মঙ্গলবার (১৮ জুন) মালয়েশিয়ার রাজধানী কুয়ালালামপুরের ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড সেন্টারে এক অনানুষ্ঠানিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে মেলার যাত্রা শুরু হয়।

মেলার উদ্বোধন করেন ম্যাট্রেডের ডেপুটি চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার নিকিক আবুবকর বিন ইউসুফ। মেলা চলবে ২০ জুন বৃহস্পতিবার পর্যন্ত। মেলা প্রতিদিন স্থানীয় সময় সকাল ৯টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত চলবে।

তিন দিনব্যাপী মেলায় বাংলাদেশ, লন্ডন, তাইওয়ান, হংকং, সিঙ্গাপুর, ভিয়েতনাম, কোরিয়া ও মালয়েশিয়াসহ মোট আটটি দেশ অংশ নিয়েছে। মেলায় মোট ২৮৩টি বুথ রয়েছে। এর মধ্যে বাংলাদেশের রয়েছে সাতটি।

মালয়েশিয়া এবং এশিয়ার মধ্যে বাণিজ্যের প্রসারের জন্য চালু করা ‘গিফট ফেয়ার’ হল একটি ব্যবসা-থেকে-ব্যবসায়িক বাণিজ্য-শো, যেখানে এশিয়া মহাদেশের ব্যবসায়ী ও শিল্পপতিরা ব্যবসায়িক সম্পর্ক গড়ে তুলতে পারে। সেই লক্ষ্যেই অংশ নিয়েছে বাংলাদেশ।

রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) উদ্যোগে এবং বাংলাদেশ হাইকমিশন, কুয়ালালামপুরের তত্ত্বাবধানে বাংলাদেশ দ্বিতীয়বারের মতো এই মেলায় অংশগ্রহণ করেছে।

বাংলাদেশ প্যাভিলিয়নে হাইকমিশনের পৃষ্ঠপোষকতায়, বাংলাদেশ থেকে আগত তরঙ্গ (পাটজাত পণ্য), মেসার্স সওদা ইন্টি: (পাটজাত পণ্য), কে.এম. মেলায় আর ক্রাফট, মদিনা ননওভেন ফেব্রিক্স লিমিটেড, কিয়াম মেটাল ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড এবং নারী ক্ষমতায়ন সংস্থা তাদের পণ্য প্রদর্শন করছে।

অনেক দর্শনার্থী, বিশেষ করে আমদানিকারকরা পণ্যটির প্রতি আগ্রহ দেখিয়েছেন। প্যাভিলিয়নের দায়িত্বে থাকা বাংলাদেশি সংস্থার কর্মকর্তাদের সঙ্গেও কথা হয় তারা।

বাংলাদেশ প্যাভিলিয়নের দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তারা জানান, প্রথম দিন থেকেই মেলায় ভালো সাড়া পাওয়া যাচ্ছে। বাংলাদেশি পণ্যের প্রতি আগ্রহ দেখে আমাদের উৎসাহও অনেক বেড়ে গেছে।

বাংলাদেশ হাইকমিশনের ফার্স্ট সেক্রেটারি (কমার্শিয়াল) প্রণব কুমার ঘোষ বলেন, মালয়েশিয়ান গিফটস অ্যান্ড প্রিমিয়াম অ্যাসোসিয়েশন (এমজিপিএ) আয়োজিত এই মেলায় অংশগ্রহণ মালয়েশিয়া ও এশিয়ায় বাংলাদেশের পণ্য রপ্তানির সুযোগ সৃষ্টি করেছে। এ ছাড়া বিভিন্ন দেশের ব্যবসায়ীদের সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তোলার সুযোগ হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ হাইকমিশন রপ্তানি বহুমুখীকরণের অংশ হিসেবে তৈরি পোশাক ছাড়া অন্য পণ্য রপ্তানির সরকারি উদ্যোগ বাস্তবায়নে কাজ করছে।

এএসএম/

পাঠকের মতামত:

প্রবাস এর সর্বশেষ খবর

প্রবাস - এর সব খবর



রে