ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০

Sharenews24

এক মাসে খুলনা প্রিন্টিংয়ের দর বেড়েছে ১৭৫ শতাংশ

২০২৩ ডিসেম্বর ০২ ১৮:১২:২০
এক মাসে খুলনা প্রিন্টিংয়ের দর বেড়েছে ১৭৫ শতাংশ

নিজস্ব প্রতিবেদক : বছরের পর বছর ধারাবাহিক লোকসানে থাকা খুলনা প্রিন্টিং অ্যান্ড প্যাকেজিং- কেপিপিএল এর শেয়ার মাত্র এক মাসের মাথায় ১৭৫ শতাংশ দর বৃদ্ধি পেয়েছে। কোম্পানিটির শেয়ারদর কোনো কারণ ছাড়াই এমন উল্লম্ফনের পেছনে শেয়ারবাজারের এক বড় বিনিয়োগকারীর কারসাজি রয়েছে বলে বাজারে গুঞ্জন রয়েছে।

তথ্য বিশ্লেষণে দেখা যায়, কোম্পানিটি বিগত পাঁচ বছর ধরে ধারাবাহিকভাবে লোকসানে রয়েছে। সর্বশেষ ২০২২ সালে প্রতিষ্ঠানটির শেয়ার প্রতি ৩ টাকা ১০ পয়সা করে সর্বমোট ২২ কোটি ৬৪ লাখ ২৪ হাজার টাকা লোকসান হয়েছে। এর আগের বছরও ৪৪ কোটি ৭০ লাখ টাকা লোকসান দিয়েছিল কোম্পানিটি।

সর্বশেষ অর্থবছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) ঋণাত্মক হয়েছে। ২০২২ সালে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সম্পদের মূল্য ছিল ঋণাত্মক (নেগেটিভ) ১ টাকা ৮৬ পয়সা। এছাড়াও কোম্পানিটির রিজার্ভও ছিল ঋণাত্মক ৮৬ কোটি ৬০ লাখ টাকা।

লোকসানের কারণে ২০২১ সাল থেকে কোম্পানিটি বিনিয়োগকারীদের কোনো ডিভিডেন্ড দিতে পারছে না। এর আগে ২০২০ সালে কোম্পানিটি শেয়ারহোল্ডারদের ০.২৫ শতাংশ নামেমাত্র ক্যাশ ডিভিডেন্ড দিয়েছে।

ডিএসইর তথ্য অনুযায়ী, গত ২৯ অক্টোবর ডিএসইতে কোম্পানিটির প্রতিটি শেয়ার লেনদেন হয় ৯ টাকা ৮০ পয়সায়। সর্বশেষ বৃহস্পতিবার কোম্পানিটির শেয়ারদর দাঁড়িয়েছে ২৭ টাকায়। এক মাসের মাথায় কোম্পানিটির শেয়ারদর বেড়েছে ১৭ টাকা ২০ পয়সা বা ১৭৫ শতাংশ।

উল্লেখ্য, খুলনা প্রিন্টিংয়ের উৎপাদন ২০২১ সালের অক্টোবর থেকে বন্ধ রয়েছে। এর মালিক এস এম আমজাদ হোসেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়ের করা মানি লন্ডারিং মামলায় বিদেশে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। দুদক আমজাদ হোসেন ও তার পরিবারের এবং কোম্পানির সব ব্যাংক অ্যাকাউন্ট জব্দ করার নির্দেশ দিয়েছে।

এমন অনিশ্চিত যাত্রায় থাকা লোকসানি একটি কোম্পানির শেয়ারদর কারসাজির কারণে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। তারপরও কোম্পানিটির শেয়ার কেন কেন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে- তা দেখার যেনো কেউ নেই। বাজার সংশ্লিষ্টরা এতে ক্ষোভ ও হতাশা ব্যক্ত করেছেন।

শেয়ারনিউজ, ০২ ডিসেম্বর ২০২৩

পাঠকের মতামত:

শেয়ারবাজার এর সর্বশেষ খবর

শেয়ারবাজার - এর সব খবর



রে