ঢাকা, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪
Sharenews24

যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ ঠেকাতে বাংলাদেশি যুবকের নামে 'বেঞ্চ ওয়ারেন্ট'

২০২৪ মে ১২ ২২:৪৮:৪৪
যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ ঠেকাতে বাংলাদেশি যুবকের নামে 'বেঞ্চ ওয়ারেন্ট'

প্রবাস ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ ঠেকাতে বাংলাদেশি যুবকের নামে আদালতের জারি করা 'বেঞ্চ ওয়ারেন্ট' পাঠিয়ে সতর্ক করা হয়েছে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষকে। ওই আদেশে গৌরব সানজারি নামের ওই যুবক যুক্তরাষ্ট্রের কোনো বিমানবন্দর দিয়ে প্রবেশের চেষ্টা করলে তাকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের নিউ জার্সির ক্যামডেন সুপরিয়র আদালত থেকে ২০২৩ সালের ১৬ নভেম্বর গৌরব সাঞ্জারির বিরুদ্ধে ৮টি গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়।

নিউ জার্সির ক্যামডেন কাউন্টির প্রসিকিউটর গ্রেস ম্যাকউলি বলেন, আদালত কর্তৃক জারি করা ৮টি গ্রেফতারি পরোয়ানার পলাতক আসামি গৌরব সানজারিকে গ্রেপ্তার করার জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রধান বিমানবন্দরগুলির কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে৷ যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের চেষ্টা করলে সেখানে তাকে গ্রেফতার করে আদালতে হাজির করা হবে। এই বিষয়ে সর্বত্র সতর্কতা জারি করা হয়েছে।

নিউ জার্সির বার্লিন টাউনশিপ পুলিশ বিভাগের গোয়েন্দাদের প্রধান লেফটেন্যান্ট এড গ্রামলি সাংবাদিকদের বলেছেন, গৌরব সানজারি তার স্ত্রীর সাথে পশ্চিম বার্লিনে থাকতেন। দেশে পালিয়ে যাওয়ার আগে পারিবারিক কলহের জেরে স্ত্রীর ওপর হামলা ও মারধর করে বেশ কয়েকবার।

২০২২ সালের ২৪ জুলাই কনিকাকে বেদম মারধর করেন। গলা চেপে ধরে শ্বাসরোধ করে হত্যার চেষ্টা করেন। পরিবারের সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে।

তার এসব কর্মকাণ্ডের জন্য নিউ জার্সির বার্লিন টাউনশীপ পুলিশের কাছে বেশ কয়েকটি অভিযোগ রয়েছে। সর্বশেষ ঘটনার পর পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে। দুইদিন পর গৌরব সাঞ্জারি জেল থেকে জামিন নিয়ে বের হন।

গৌরবের স্ত্রী কনিকা মজুমদার জানান, গৌরব সানজারি চট্টগ্রামের জুবিলি রোডের বাসিন্দা শিবু শীলের ছেলে। যুক্তরাষ্ট্রে পুনরায় গ্রেফতারের ভয়ে কিছুদিন নিউইয়র্কে আত্মগোপনে থাকার পর প্রায় ১ বছর আগে তিনি বাংলাদেশে পালিয়ে আসেন। সেখান থেকে তারা আমাকে ও আমার পরিবারের সদস্যদের প্রতিনিয়ত হুমকি দিচ্ছে। গৌরব মিডিয়ায় আমাদের পরিবারের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির মিথ্যা অভিযোগও করছে।

কনিকা বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রে যৌন হয়রানি নিষিদ্ধ। এছাড়াও যুক্তরাষ্ট্রে থাকাকালীন সময়ে সে কখনই পুলিশ, তার আইনজীবী, আদালত কিংবা আমাকেও কিছুই জানায়নি।’

তিনি আরও বলেন, ‘পাইলস অপারেশনের এক্স-রে ও কোলনোস্কোপির ছবি দেখিয়ে বাংলাদেশের গণমাধ্যমে যৌন হয়রানি বলে বেড়াচ্ছেন। এসব করে গৌরব আমাকে এবং আমার পরিবারকে হেয় প্রতিপন্নই করেননি, কলঙ্কিতও করেছেন।’

২০১৮ সালের নভেম্বরে আমেরিকায় ফেরার পথে, কুয়েত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নিউইয়র্ক যাওয়ার ট্রানজিট (সংযোগ) ফ্লাইটে গৌরব-কনিকার দেখা হয়েছিল। সেই সময় কণিকা মজুমদার বোর্ডিং লাইনে গৌরব ও তার মা ফিরতা শীলের সঙ্গে দেখা করেন।

তারপর গৌরব-কণিকা ১৩ নভেম্বর ২০১৯-এ বিয়ে করেন। নিয়ম অনুযায়ী, কনিকার স্বামী গৌরব সানজারি তার ইমিগ্রেশন ভিসায় আমেরিকায় পাড়ি জমান। বিয়ের পর বেশ কিছুদিন বিবাহিত জীবন ভালোই চলছিল। গৌরবের গ্রিনকার্ড পাওয়ার পর থেকেই সংসারে কলহ শুরু হয়। গৌরবের স্ত্রীর দেশের বাড়ি নোয়াখালী জেলার চরজাবের হাজীপুরে।

শেয়ারনিউজ, ১২ মে ২০২৪

পাঠকের মতামত:

বিশেষ সংবাদ এর সর্বশেষ খবর

বিশেষ সংবাদ - এর সব খবর



রে