ঢাকা, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪
Sharenews24

গ্রিসে বাড়ছে বাংলাদেশি নারী উদ্যোক্তার সংখ্যা

২০২৪ মে ১৯ ১৬:৫৫:১৪
গ্রিসে বাড়ছে বাংলাদেশি নারী উদ্যোক্তার সংখ্যা

প্রবাস ডেস্ক : ইউরোপের দেশ গ্রিসে বাড়ছে বাংলাদেশি নারী উদ্যোক্তাদের সংখ্যা। দেশটিতে বসবাস করছেন প্রায় ৩০ হাজারের মতো বাংলাদেশি। এর মধ্যে নারীর সংখ্যা হবে প্রায় ৫ শতাধিক।

বাঙালি নারীরা যে কর্ম উদ্যোগী, তার চিত্র দেখা যায় গ্রিসের রাজধানী এথেন্সে। বাংলাদেশি অনেক নারী এখানে কেউ স্বামী সহায়তায় আবার কেউ কেউ নিজ উদ্যোগেই গড়ে তুলেছেন ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান।

তাদের একজন হাসিনা সুলতানা নীলা, যিনি ২০১২ সালে গ্রিসে এসে ঈদের কেনাকাটার জন্য বাংলাদেশি পোশাক না পেয়ে মাত্র ২০০ ইউরো দিয়ে ব্যবসা শুরু করেছিলেন। ধাপে ধাপে তিনি এখন একজন সফল নারী উদ্যোক্তা।

বাংলা বুটিক হাউসের প্রতিষ্ঠাতা এবং গ্রিসে বাংলাদেশ কমিউনিটির সদস্য, একজন সফল নারী উদ্যোক্তা হাসিনা সুলতানা নীলা জানান, তিনি ২০১২ সালে পারিবারিক ভিসায় গ্রিসে আসেন। গ্রিসে আসার দুই মাস পর আসে ঈদ। আমি যখন বাংলাদেশে ছিলাম, আমি প্রতি ঈদে নিজের এবং আমার পরিবারের জন্য স্থানীয় পোশাক কিনি এবং পরতাম, কিন্তু গ্রিসে এসে বাংলাদেশী পণ্য না পেয়ে হতাশ হলাম।

গ্রিসে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের পোশাক থাকলেও তখন মেলেনি দেশীয় শাড়ি, ত্রি-পিস, পাঞ্জাবি। এই বিষয়টি আমার মনে অনেক দুঃখ দেয়। আমার মতো অনেক বাংলাদেশিকে দেখতাম দেশীয় পোশাক কিনতে চাইতেন, কিন্ত পাওয়া যেত না।

নারী উদ্যোক্তা হাসিনা সুলতানা নীলা বলেন, 'সেই দুঃখ এক সময় স্বপ্নে পরিণত হয়। আমার স্বামীর সহায়তায় আমি বাংলাদেশ থেকে বিভিন্ন বাংলাদেশী পণ্য বিক্রি শুরু করি, শুরু থেকেই ভালো সাড়া পেয়েছি। প্রথমে বাসা থেকে পণ্য বিক্রি করতাম। পরে বাংলাদেশ দূতাবাসের বৈশাখী মেলাসহ গ্রিসের বিভিন্ন মেলায় বাংলাদেশি পণ্য নিয়ে স্টল দিতাম।

এইভাবে, নীলা ধীরে ধীরে ২০১৭ সালে এথেন্সে বাংলা বুটিক হাউস নামে একটি ব্যবসা গড়ে তোলেন। হাসিনা সুলতানা নীলা মাত্র ২০০ ইউরো দিয়ে ব্যবসা শুরু করে নিজেকে একজন সফল নারী উদ্যোক্তা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছেন।

নীলা বলেন, ‘আমি তখনই সফল বোধ করি যখন গ্রীক, রাশিয়ান, শ্রীলঙ্কান, নেপালিসহ দেশীয় ক্রেতারা আমার কোম্পানিতে এসে বাংলাদেশি পণ্য কিনে আমার প্রশংসা করেন। আমি তাদের বাংলাদেশী পণ্য সম্পর্কে ভালো ধারণা দেওয়ার চেষ্টা করি।’

নীলা বলেন, ‘যারা উদ্যোক্তা হতে চান, তাদের আত্মবিশ্বাসী হতে হবে, ধৈর্য ধরতে হবে, কারণ ধৈর্য ছাড়া ব্যবসা করা যায় না। সৎ থাকতে হবে এবং পণ্যের মান ভালো রাখতে হবে, তাহলেই একদিন না একদিন সফলতা আসবে।’

নীলার মতো অনেক বাংলাদেশি নারী গ্রিসে রেস্টুরেন্ট, মিনি মার্কেট, গার্মেন্টস, মানি ট্রান্সফার এজেন্সি, জুয়েলারি শপ, কাপড়ের ব্যবসাসহ নানা ধরনের ব্যবসা পরিচালনা করছেন।

শেয়ারনিউজ, ১৯ মে ২০২৪

পাঠকের মতামত:

প্রবাস এর সর্বশেষ খবর

প্রবাস - এর সব খবর



রে