ঢাকা, সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪
Sharenews24

বিদেশের প্রলোভন দিয়ে

‘দালালরা আমাদের পথের ভিখারি বানাই দিল’

২০২৪ মে ২১ ২২:২৬:১৪
‘দালালরা আমাদের পথের ভিখারি বানাই দিল’

নিজস্ব প্রতিবেদক : মঙ্গলবার (২১ মে) বিকেল আনুমানিক চারটা। কাকরাইলের জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর করিডরো বিষণ্ণ মনে বসে আছেন নুরুন নবী নামের এক ব্যক্তি। বয়স ৫০। তার চোখে-মুখে অনিশ্চয়তার ছাপ।

হঠাৎ তার পাশে এসে দাঁড়াল এক যুবক। ওই যুবকের শরীরে ক্লান্তির ছাপ নূরুন নবীর মতো। পরে জানা গেল, তারা বাবা-ছেলের সম্পর্ক। দালাল চক্রের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানাতে ফেনী থেকে বিএমইটিতে এসেছেন। বিদেশে পাঠানোর নামে দালালরা তাদের কাছ থেকে সাড়ে চার লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়।

ভুক্তভোগী নুরুন নবী জানান, গত ৯ মে তার ছেলের সৌদি আরব যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সৌদি যাওয়াতো দূরের কথা, এখন অভিযোগ নিয়ে ঢাকায় এসেছে। তিনি বলেন, স্বপ্ন ছিল ছেলে বিদেশে গিয়ে ভালো কিছু করবে। তাই বাড়ী বন্ধক ও ব্র্যাক ব্যাংক থেকে সাড়ে চার লাখ টাকা ঋণ নিয়েছি। সেই টাকা আমি ফেনীর স্থানীয় দালাল সাহাবুদ্দিনকে দেই। পরে সাহাবুদ্দিন আমাদের ফেনীর সাঈদ ইসলাম নামে আরেক দালালের সাথে যোগাযোগ করে। সাঈদ মূলত সৌদি আরবে থাকেন। তার সঙ্গে জড়িত ফজলি কাজী।

নুরুন নবী বলেন, এই তিনজন প্রথমে আমার কাছ থেকে তিন লাখ টাকা নেয়। তারপর উত্তরবঙ্গ সংস্থার সাথে যোগাযোগ করে। মূলত উত্তরবঙ্গ এজেন্সি ভিসা, বিএমইটি কার্ড এবং স্বাস্থ্য সনদ করে দেয়। পরে দালালের মাধ্যমে দেড় লাখ টাকা নেয় এজেন্সি। বিনিময়ে সৌদি আরবে পাঠানোর প্রতিশ্রুতি দেন তিনি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত বিদেশ না নিয়ে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরাচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, প্রতি সপ্তাহে ৩০ হাজার টাকার কিস্তি দিতে হয়। এখন এই টাকা কিভাবে পরিশোধ করব জানি না। এখন ভিক্ষা করা ছাড়া উপায় নেই। দালালরা আমাকে রাস্তার ভিক্ষুক বানিয়ে দিয়েছে।

তার ছেলে রায়হান বলেন, গত ৯ মে আমার সৌদি আরব যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ভিক্টোরিয়া ওভারসিজ এজেন্সি সাড়ে তিন লাখ টাকা নিয়েও আমাকে সৌদি আরবে পাঠাতে পারেনি। তাই গত শনিবার দুপুর ২টায় বাবার সাথে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা হই। রোববার সকালে বাবাকে নিয়ে ঢাকার পল্টনে ভিক্টোরিয়া ওভারসিজ এজেন্সিতে যাই। আমি সেখানকার এজেন্সির মালিকের কাছ থেকে টাকা ফেরত চাই। এজেন্সির মালিক টাকা নেওয়ার কথা অস্বীকার করে।

দুপুর ২টা পর্যন্ত সেখানে থাকার পরও সমস্যার সমাধান হয়নি। পরে কাকরাইলের জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোতে পায়ে হেঁটে আসেন। বিকেল তিনটায় বিএমইটিতে এসে পৌঁছান। এখানে এসে তিনি দিশেহারা হয়ে পড়েন। কিভাবে লিখতে হয়, অভিযোগ জমা দিতে হয় সে সম্পর্কে কিছুই জানেন না।

তিনি আরও বলেন, বিএমইটিতে অভিযোগ দায়ের করতে গিয়ে তাকে অসুবিধার সম্মুখীন হতে হয়েছে। অভিযোগ লিখে জমা দেওয়ার সময় তাকে তার নিজ জেলায় অভিযোগ জমা দিতে বলা হয়। তবে আমরা ঢাকা অফিসে জমা দিতে চাই। কিন্তু তারা ঢাকায় অভিযোগ নিতে চায় না। প্রায় দুই ঘণ্টা বসে থাকার পর অনেক অনুনয়-বিনয়ের পর তারা অভিযোগ নিতে রাজি হন। পরে বিকেল পাঁচটার দিকে আমরা অভিযোগ জমা দেই।

তাদের মতো নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলার রাকিব হোসেন নামের আরেক যুবক অভিযোগ করতে বিএমইটিতে এসেছেন। তিনি বলেন, দুই ভাই ও ছোট বোনের স্বর্ণ মুচলেকা রেখে টাকা নিয়েছি। তিন মাস হলো তার বিয়ে হয়েছে। এছাড়াও, আমি বাড়ির জমির দলিল বন্ধক রেখেছি। আমি এখন সেই বন্ধকী কিভাবে পরিশোধ করবো জানিনা। টাকা দিতে না পারলে আমাদের ঘর থাকবে না। আমার বোনের সংসার টিকবে কিনা জানি না।

তিনি আরও বলেন, উত্তরবঙ্গের এজেন্সি আমাদের কাছ থেকে ৭ লাখ টাকা নিয়েছে। একাধিকবার এই সংস্থার কাছে গিয়েও সমস্যার সমাধান করা যায়নি। উল্টো তারা আমাদের ভয় দেখিয়েছে। আমরা আমাদের টাকা ফেরত চাই, নয়তো আমরা বিদেশে যেতে চাই।'' তাদের মতো আরও ১৬ জন ভুক্তভোগী অভিযোগ নিয়ে বিএমইটি-তে এসেছেন। তাদের গল্পটা ঠিক তেমনই।

অভিযোগের বিষয়ে নর্থ বেঙ্গল ওভারসিজ লিমিটেডের মালিক হাসিবুল ইসলাম বাবু বলেন, আমি টাকা আত্মসাৎ করিনি। আমার কোম্পানিতে মোট ১১ জন কাজ করে। তাদের মধ্যে সাহাবুদ্দিন নামে একজন এই কাজ করেছে। তার সঙ্গে কাজ করেছেন আবু সাইদ। আবু সাইদ ফজলু কাজীর সঙ্গে দেখা করেন। তার ভিত্তিতে ফজলু আবু সাঈদকে লোক ম্যানেজ করতে বলেন। তাদের টাকা আবু সাঈদ আত্মসাৎ করেছে।

তিনি আরও বলেন, আমি ১০ জনের কাছ থেকে ৬ লাখ ৮০ টাকা পেয়েছি। সাতজনের চিকিৎসা বাবদ ২০ হাজার টাকা এবং ১ লাখ ৪০ হাজার টাকা নিয়েছি। এছাড়া বাড়তি কোনো টাকা নেওয়া হয়নি। তারা ফ্লাইটের দিন সকালে আসছে। আমি তাদের বলেছি টাকা দিলে ফ্লাইট হবে, টাকা না দিলে হবে না। যে টাকাগুলো মারছে তার নাম আবু সাঈদ।

এভাবে দালালরা একে অন্যের উপর দোষ চাপিয়ে পার পেতে চায়। এদিকে, যারা বিদেশ যাওয়ার আশায় সংসাদের হাসি ফেরাতে অনেক কষ্টসাধ্য করে এদেরকে টাকা-পয়সা দিয়েছে, তারা এখন পথে পথে ঘুরছে। তাদের এখন পথের ফকির হওয়ার উপক্রম।

শেয়ারনিউজ, ২১ মে ২০২৪

পাঠকের মতামত:

প্রবাস এর সর্বশেষ খবর

প্রবাস - এর সব খবর



রে