ঢাকা, সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪
Sharenews24

বাংলাদেশের নির্বাচন নিয়ে আবারও কেজরিওয়ালের বিস্ফোরক মন্তব্য

২০২৪ মে ২৪ ২৩:০৮:১৭
বাংলাদেশের নির্বাচন নিয়ে আবারও কেজরিওয়ালের বিস্ফোরক মন্তব্য

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ভারতের মুখ্যমন্ত্রী এবং আম আদমি পার্টির (এএপি) নেতা অরবিন্দ কেজরিওয়াল ভারতের গণতন্ত্রের কথা বলার সময় আবারও বাংলাদেশের নির্বাচন নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য করেছেন। তিনি বাংলাদেশের সঙ্গে আগের মতোরাশিয়া ও পাকিস্তানের সমালোচনা করেন।

বাংলাদেশ নির্বাচন নিয়ে কথা বলতে গিয়ে কেজরিওয়াল বলেন, শেখ হাসিনা সবাইকে জেলে রেখে বাংলাদেশে বিপুল ভোটে জয়ী হয়েছেন। আর পাকিস্তানের কথা বলতে গিয়ে বলেন, তারা (সেনাবাহিনীর দিকে ইশারা করে) ইমরান খানকে কারাগারে কবর দিয়েছে। তার দল, দলীয় প্রতীক কেড়ে নেওয়া হয়েছে। তারপর তারা জিতেছে।

আজ শুক্রবার (২৪ মে) এএপি নেতা অরবিন্দ কেজরিওয়াল দেশটির সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে দেওয়া এক বিশেষ সাক্ষাৎকারে এসব মন্তব্য করেন। সাক্ষাৎকারে তিনি তার জেলে যাওয়া, ভারতের গণতন্ত্র, নির্বাচন ইত্যাদি নিয়ে কথা বলেছেন।

সাক্ষাৎকারে তাঁকে জিজ্ঞাসা করা হয়, তিনিই কি প্রথম মুখ্যমন্ত্রী যাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে? এখন যেহেতু তিনি অন্তর্বর্তীকালীন জামিনে বেরিয়েছেন, সেখানে তার সময় সম্পর্কে তিনি কী ভাবছেন?

জবাবে কেজরিওয়াল বলেন, দেশ খুব কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। ধীরে ধীরে এবং এখন খুব দ্রুত দেশ একনায়কতন্ত্রের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। তারা (কেন্দ্রের বিজেপি সরকার) প্রথমে (ঝাড়খণ্ডের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী) হেমন্ত সোরেন এবং তারপর আমাকে গ্রেপ্তার করেছিল।

আমাকে গ্রেফতার করে তারা দেশের মানুষকে বার্তা দিচ্ছে। অর্থাৎ কেজরিওয়ালকে মিথ্যা মামলায় গ্রেপ্তার করতে পারলে যে কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারে। তাই অন্যদের ভয় করা উচিত এবং তারা (বিজেপি) যা বলে, মানুষের তা করা উচিত। এগুলো স্বৈরাচারের লক্ষণ বলে তিনি মনে করেন।

গণতন্ত্রে তাদের (বিজেপি) জনগণের কথা শোনা উচিত। কিন্তু তারা জনগণকে তাদের কথা শুনতে বলছে। এর থেকে আমাদের দেশকে বাঁচাতে হবে। এক অর্থে এটা স্বাধীনতা সংগ্রামের মতো। আজকে আমাকে অনুপ্রাণিত করেছে এমন অনেক মানুষ দীর্ঘদিন কারাগারে ছিলেন।

দুর্নীতির জন্য নয়, দেশ বাঁচাতে জেলে গিয়েছি। এএপি নেতা মনীশ সিসোদিয়া অন্যায় করার জন্য জেলে যাননি। এদেশের স্বাধীনতার জন্য মানুষ যেমন দীর্ঘদিন জেলে গেছে, আমরাও গণতন্ত্র ও সংবিধান বাঁচাতে জেলে যাচ্ছি। আমি সব সময় বলেছি দেশের জন্য জীবন দিতে পারি। এটা সেই সংগ্রামের অংশ।

কে প্রশ্ন করা হয়, মোদির তৃতীয় মেয়াদে প্রধানমন্ত্রী কেমন হবে বলে আপনি মনে করেন?

জবাবে কেজরিওয়াল বলেন, তারা সংবিধান পরিবর্তন করবে এবং দেশ একনায়কতন্ত্রের দিকে যাবে। হয় দেশে কোনো নির্বাচন হবে না, নয়তো রাশিয়ার মতো নির্বাচন হবে, যেখানে পুতিন হয় বন্দি করেছেন বা হত্যা করেছেন সব বিরোধীদের। এরপর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় এবং তিনি ৮৭ শতাংশ ভোট পান।

বাংলাদেশে শেখ হাসিনা সবাইকে জেলে রেখে বিপুল ভোটে জিতেছেন। পাকিস্তানে তারা (সেনাবাহিনীর দিকে ইঙ্গিত করে) ইমরান খানকে কারাগারে কবর দিয়েছে। তার দল, দলীয় প্রতীক কেড়ে নেওয়া হয়েছে। তারপর তারা জিতেছে।

আমাদের দেশেও এমন নির্বাচন হবে। বিরোধীরা জেলে থাকবে এবং তারা ভোট পেতে থাকবে। এবারও ওরা আমাকে জেলে দিল। মণীশ সিসোদিয়া জেলে। আমাদের দলের শীর্ষস্থানীয় পাঁচ নেতাকে কারাগারে পাঠান।

তারা আমাদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট ব্লক (ফ্রিজ) করতে চলেছে। তারা কংগ্রেসের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট ব্লক করে দিয়েছে। হেমন্ত সোরেনকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। তারা এনসিপিকে দুই ভাগে ভাগ করেছে। কেড়ে নিয়েছে তাদের প্রতীক। তারা শিবসেনাকে বিভক্ত করেছে। কেড়ে নিয়েছে তাদের প্রতীক। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকারের অনেক মন্ত্রীকে জেলে পাঠানো হয়েছে। স্ট্যালিন সরকারের মন্ত্রীদের ক্ষেত্রেও একই ঘটনা ঘটেছে। আমরা কীভাবে লড়াই করছি তা আপনি কল্পনা করতে পারবেন না।

এর আগে গত শুক্রবার (১৭ মে) ভারতের পাঞ্জাব রাজ্যে প্রচারণার সময় একই ধরনের মন্তব্য করেছিলেন তিনি। কেজরিওয়াল বলেন, পুতিন, শেখ হাসিনা ও পাকিস্তানের মতো ভারতেও নির্বাচনে জিততে চায় মোদি।

তিনি বলেন, রাশিয়ার নাম শুনেছেন? রাশিয়া, পুতিন, পুতিন কি করল, যারা বিরোধী দলের নেতা ছিল, তাদের জেলে দিল, খুন করল, যাতে কেউ কিছু করতে না পারে। পুতিন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ৮৭ শতাংশ ভোট জিতেছেন, বিরোধীদের নির্মূল করেছেন। যখন কোন প্রতিদ্বন্দ্বী নেই, আপনিতো সব ভোট পাবেনই। বাংলাদেশেও তাই হয়েছে। বিরোধী দলের সব নেতাকে জেলে রেখে শেখ হাসিনা জয়ী হয়েছেন। পাকিস্তানেও একই ঘটনা ঘটেছে। মোদিও ভারতে একই কাজ করতে চান বলে অভিযোগ করেন দিল্লির এই মুখ্যমন্ত্রী।

শেয়ারনিউজ, ২৪ মে ২০২৪

পাঠকের মতামত:

জাতীয় এর সর্বশেষ খবর

জাতীয় - এর সব খবর



রে