ঢাকা, সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪
Sharenews24

গর্ভস্থ সন্তানের লিঙ্গ জানতে স্ত্রীর পেট কেটে ফেলেন স্বামী

২০২৪ মে ২৫ ১০:২৯:১৪
গর্ভস্থ সন্তানের লিঙ্গ জানতে স্ত্রীর পেট কেটে ফেলেন স্বামী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : গর্ভবতী স্ত্রীর পেটের সন্তানের লিঙ্গ জানতে কাঁচি দিয়ে পেট কাটে স্বামী। পরে ওই নারীকে বাঁচানো গেলেও অনাগত শিশুটিকে বাঁচানো যায়নি। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের উত্তর প্রদেশের বাহাদুন এলাকায়। খরব এনডিটিভির

প্রতিবেদনে বলা হয়, পরে জানা যায় ওই সন্তান ছিল ছেলে। এ ঘটনায় এক মামলায় স্বামী পান্না লালকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। ২০২০ সালের নভেম্বরের এই ঘটনায় গুরুতর আহত হন তাঁর স্ত্রী অনিতা।

২২ বছর ধরে সংসার করেন পান্না–অনিতা দম্পতি। তাদের পাঁচ সন্তান রয়েছে, সবাই মেয়ে। ছেলে সন্তানের জন্য প্রায়ই স্ত্রীর সঙ্গে ঝগড়া করতেন পান্না। অনিতার পরিবার তাঁকে অনেক বোঝালেও তিনি অনিতাকে ডিভোর্স দেওয়ার হুমকি দেন। ডিভোর্স দিয়ে অন্য আরেকটা বিয়ে করে ছেলে সন্তান চান বলে জানান তিনি।

ঘটনার দিন গর্ভের সন্তান নিয়ে ঝগড়া করেন পান্না ও অনিতা। এ সময় পান্না হুমকি দেন, তিনি পেট কেটে দেখবেন সন্তান ছেলে নাকি মেয়ে। পরে মেরে ফেলারও হুমকি দেন তিনি।

পরে ভয়ে ঘর থেকে বের হয়ে যাওয়ার সময় অনিতাকে ধরে কাচি দিয়ে পেট কেটে ফেলেন। অনিতার পেটে তখন আট মাসের সন্তান। এতে পেটের নাড়ি বেরিয়ে গিয়েছিল তাঁর।

পরে আশপাশের লোকজন এতে দ্রুত হাসপাতালে নিলে বেঁচে যান অনিতা। তবে, সন্তানকে বাঁচানো যায়নি। জানা যায়, সন্তানটি ছিল ছেলে। ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যান পান্না।

শেয়ারনিউজ, ২৫ মে ২০২৪

পাঠকের মতামত:

আন্তর্জাতিক এর সর্বশেষ খবর

আন্তর্জাতিক - এর সব খবর



রে